ফারহানা সুপ্তির জনপ্রিয় বরিশালের আমড়া এবং সউদ্ভাবিত কালো জিরার আচার


বাসে, পথে ঘাটে, বাজারে গেলেই হকারদের হাক ডাক “বরিশালের মিষ্টি আমড়া…”, আর সবাই নড়েচড়ে বসে হকার খোঁজে, সবার অজান্তে জিভে আসা জল ঢোক গিলে। একটা আমড়া না খেলেই নয়। কিন্তু ভাই একটু থামুন, আমড়া মানেই যে তা সত্যি বরিশাল থেকে এসেছে তা কিন্তু নয়। আমরা অনেকেই ছোট ছোট টক আমড়া সারাজীবন খেয়ে এসে ধরে নিয়ে বসে আছি, আমরা তো বরিশালের আমড়াই খাই! বিশ্বাস করুন, স্বাদে আর সাইজে বরিশালের আমড়ার সাথে পুরো বাংলাদেশের প্রতিটা জেলার আমড়াই হার মানবে। চিরাচরিত বাংলার ঐতিহ্য খিচুরির সাথে একটু আচার যেন চাইই চাই। নিজ হাতে আমড়ার আচার বানাতে চান, কিন্তু দেশের অন্য প্রান্তে থেকে এই ভেজালের বাজারে সত্যিকারের বরিশালের আমড়া কোথায় পাবেন? আর চিন্তা নয়, আসল বরিশালের আমড়া অনলাইনে বাজারজাত করছেন বরিশালের মেয়ে ফারহানা আক্তার সুপ্তি। Wish Dish.BD তাঁর অনলাইন পেইজ যেখানে তিনি বরিশালের আমড়ার পাশাপাশি ভিবিন্ন ফলের আচার এবং কালো জিরারা লাড্ডুও সরবরাহ করে থাকেন তিনি। বরিশালের আমড়ার সাথে আপনার দুরত্ব শুধু মাত্র একটি অর্ডারের। আজ আমরা কথা বলবো ফারজানা আক্তার সুপ্তির সাথে, জানবো বরিশালের আমড়ার সম্পর্কে আর জানবো তাঁর অনলাইন বিজনেসের ভূত ভবিষ্যৎ এর কথা।

কিভাবে অনলাইন ক্যারিয়ারের এর সাথে যুক্ত হলেন।

আমি ফারহানা আক্তার সুপ্তি । বরিশালের মেয়ে  নিজের সম্পর্কে  বলার মত খুব বেশি  কিছু নেই আবার অনেক কিছু আছে৷  খুবই সাদামাটা জীনবযাপন। স্বপ্ন ছিল ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার৷ তাই পড়াশোনা করেছি টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারিং নিয়ে। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এ ক্যারিয়ার শুরুর স্বপ্ন থাকলেও  বিভিন্ন  পরিস্থিতিতে  সেটা আর হয়ে উঠছিলো না৷ তবু ছাই চাপা আগুনের মত কিছু একটা করার স্বপ্ন ছিলো মনের মধ্যে৷ বিভিন্ন ভাবে খুঁজছিলাম কি করা যায়৷ যখন দেখতাম ফ্রেন্ডসার্কেল সবাই জব করছে বা পড়াশুনা করছে খুব খারাপ লাগতো মনে হতো আমাকে দিয়ে হয়তো কিছু হবে না৷  প্রচুর  অনলাইন কেনাকাটার অভিজ্ঞতা থাকায় এটা নিয়ে ভাবতে শুরু করি তারপর হঠাৎ  একদিন ফেসবুকে Women and E-Commerce Forum (We) এর তারপর আরও সিরিয়াসলি ভাবতে থাকি এই গ্রুপ্রের কল্যানে৷ এখানে শিখতে থাকি  e-commerce  এর সব কিছু৷ কালোজিরার আচার করা যেতে পারে কথাটা মাথায় আসে কালোজিরার  ভর্তা করতে গিয়ে৷ তারপর এ নিয়ে ইন্টারনেটে ঘাটাঘাটি করে খুব বেশি কিছু পাইনা যাও পাই সেটা মনমত হয় না আমার৷ আমড়া নিয়ে কাজ শুরু করলেও আমার উদ্যোগ এর প্রায়রিটি হচ্ছে আচার৷ আর আমার সিগনেচার পন্য হলো কালোজিরার আচার৷ কালোজিরার আচার এর রেসিপি আমার নিজের উদ্ভাবিত। কালোজিরার আচার টা মূলত তাদের জন্য যাদের কালো জিরা খাওয়া দরকার কিন্তু এর গন্ধ বা তেতো ভাব এর জন্য খেতে পারছেন না৷  কালোজিরার  আচার থেকে  সবথেকে বেশি  উপকৃত হয়েছে নতুন মায়েরা যারা বাচ্চা কে ব্রেস্ট  ফিডিং করাচ্ছেন৷  এখন পর্যন্ত আমার সর্বোচ্চ সেল হয়েছে কালোজিরার আচার এর৷ আসলে এই করোনা কালীন সময়ে আমাদের সবারই কালোজিরা খাওয়া উচিৎ। আমরা মুসলিম রা এটা বিশ্বাস করি যে মৃত্যু ব্যতিত সকল রোগের ওষুধ হলো এই কালো জিরা। এ ছাড়াও আমি  সব রকম সিজনাল আচার নিয়েও কাজ করছি৷ আর নিজেদের আমড়ার বাগান আছে, তাই বরিশালের আমড়া সরবরাহ করাটা আমার জন্য সহজ। তাই আমড়া সংযুক্ত হয়েছে আমার পন্যের তালিকায়। মজার ব্যপার হচ্ছে করোনা থেকে বাঁচার জন্য আমরা সবাই ডাক্তারের পরামর্শ এখন ভিটামিন সি বেশী বেশী খাচ্ছি। আমড়ায় আছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি। আমি এই ব্যপারটা নিয়ে খুব খুশি যে আমি যে সকল পন্য নিয়ে কাজ করছি তা কোন না কোন ভাবে এই করোনাকালীন সময়ে সকলের স্বাস্থ্যের জন্য লাভ জনক। আমিও এটাই চাই। সবাই আমরা নিজেদের যত্ন নেই আর এই ভয়ানক পরিস্থিতির মোকাবেলা করি।

কালোজিরার আচার
বরিশালের মিষ্টি আমড়া

অনেকেই বরিশালের আমড়া বলে অন্যান্য এলাকার আমড়া বিক্রি করে, এক্ষেত্রে ক্রেতা কি দেখে বুঝতে পারবে যে বরিশালের আমড়া কোনটা?

উদ্যোগের শুরুতেই খুঁজতে থাকি কি নিয়ে কাজ শুরু করলে বরিশালকে রিপ্রেজেন্ট  করা যায়৷ তখন ই মাথায় আসে আমড়ার ব্যাপারটা৷ বরিশাল আমড়া বলে অনেকেই হয়তো অন্য এলাকার আমড়াও সেল করে থাকে কিন্তু বরিশাল এর আমড়ার স্পেশালিটি হল এর কিং সাইজ  আর  এর  এর মিষ্টি  ভাব৷ বরিশাল  এর আমড়ায় টক এর পরিমাণ নেই বললেই চলে৷ আমড়া পেকে হলুদ হলে এটা খেতে অনেকটা আমের মত মিষ্টি  মনে হয়৷  

নিজস্ব আমড়া বাগান

আমড়া কোথায় থেকে সংগ্রহ করছেন? আপনার আমড়ার আচার এর সম্পর্কে বলুন

আমড়া নিয়ে কাজ শুরু করার আর একটা কারন হলো  এটা কালেক্ট  করা অনেক ইজি ছিলো আমার জন্য৷ আমি বরিশালের মেয়ে। সেই সুবাদে আমাদের নিজস্ব আমড়া বাগান আছে যা আমার বাবা নিজে দেখা শোনা করে থাকেন। ঝড় বৃষ্টি উপেক্ষা করে পরম মমতায় আমরা পরিবারের সবাই এই বাগানের যত্ন করি। এক একটা গাছ আমাদের সন্তানের মতো প্রিয়। আমি সবসময় এই ভালোবাসার বাগান থেকে আমড়া সংগ্রহ  করে বাজারজাত করে থাকি, এই বাগানের আমড়া পৌঁছে দেই ক্রেতার রিকয়ারমেন্ট অনুযায়ী বাংলাদেশের যেকোন জেলায়। 

বরিশালের আমড়ার সুস্বাদু আচার

কাজের ক্ষেত্রে কি কি বাধার সম্মুখীন আপনাকে হতে হয়েছে এবং কিভাবে তা মোকাবিলা করছেন?

আমার কাজে পারিবারিক কোন বাধাই সেভাবে আসেনি আমার সামনে তবে সবথেকে চ্যালেঞ্জিং  ব্যাপার ছিলো পন্য ডেলিভারি দেওয়া৷ যেহেতু ফুড আইটেম উদ্যোগ এর প্রথম দিকে ডেলিভারি নিয়ে অনেক ঝামেলা পোহাতে  হয়েছে৷ কখনও মন ভেঙে  গেছে ভেবেছি হয়তো থেমে যাবো কিন্তু সময় এর সাথে সাথে নিজের ওপর বিশ্বাস বেড়েছে তাই এখন আর কোন সমস্যাতেই ঘাবরে যাইনা কারন আমি জানি আমি পারি৷ 

লোভনীয় আচার

আপনার অনলাইন উদ্যোগের পেছনে কার উৎসাহ আপনাকে সামনে এগিয়ে যেতে সবচেয়ে বেশী সাহায্য করছে।

বিজনেসে আমার হাসবেন্ড সহ সব কাছের মানুষদের উৎসাহ সবসময় ছিলো৷ বোনদের  সহযোগিতা ছিলো সবচেয়ে বেশি।  ওদের সাহায্য  ছাড়া একটা দের বছর এর ছোট বেবী নিয়ে বাবার বাড়ি শশুরবাড়ি দুই দিক সামলে  কখনই হয়তো সাহস করে কাজে নামতে পারতামনা৷ 

আপনার অনলাইন ক্যারিয়ারের সফলতা সম্পর্কে বলুন।

সফলতার ব্যাপারে বলতে গেলে আমার মনে হয় সফলাতার কিছু ধাপ থাকে প্রাথমিক ধাপে বলতে গেলে  আমি সফল। নিজের পছন্দের  কাজ কে নিয়ে  এগিয়ে যাচ্ছি। আর একটা জিনিস বিশ্বাস করি যে কোন কাজে লেগে থাকলে সফলতা আসবেই৷  নিজের সফলতা টা তখন ই বেশি অনুভব  করি  যখন আমার পন্য নিয়ে কেউ উপকৃত  হয়৷  

মজাদার আচার

যারা নতুন উদ্যোক্তা বা কোন উদ্যোগ নিবেন বলে ভাবছেন তাদের জন্যে কিছু বলুন।

এক ভাবে বলতে গেলে আমি নিজেও একজন নতুন উদ্যোক্তা এই অল্প সময়ে যে টুকু শিখতে পেরেছি সেই অভিজ্ঞতা  থেকে সংক্ষেপে  বলবো  উদ্যোগ শুরু করার আগে সময় নিন কোন কাজটা ভালো পারেন  আপনার জন্য সুবিধাজনক সেটা খুঁজে বের করুন। নিজের পন্য সম্পর্কে  জানুন এবং সবথেকে বড় কথা শিখুন৷ বিজনেসে শেখার কোন শেষ  নেই৷ তারপর লক্ষ  স্থির করে লেগে থাকুন৷ সফলতা একসময় আসবেই৷

ফারহানার নিজস্ব রেসিপিতে কালো জিরার মজাদার আচার

ফারহানা আপু আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ আমাদের সাথে আপনার কাজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করার জন্য। আশা করি নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য আপনার কথা গুলো খুবই ফলপ্রসূ হবে, তাদের উৎসাহ যোগাবে। আর যারা বরিশালের মিষ্টি আমড়া সরাসরি বরিশাল থেকে ঘরে বসেই পেতে চান তারা যোগাযোগ করুন Wish Dish.bd এর সাথে। আশা করি বেশ ভালো অভিজ্ঞতা হবে আপনাদের। বাজারের অস্ট্রেলিয়ান আপেল, ফ্রান্সের চেরী ফল খাওয়ার আগে আমি মনে করি ভিটামিন সি তে ভরপুর দেশীয় এই সুমিষ্ট ফল টি চেখে দেখা সবার আগে জরুরী। ফারহানা আক্তার সুপ্তি আপুর জন্য রইলো অনেক অনেক শুভ কামনা এবং ভালোবাসা। 


Leave a Reply

Your email address will not be published.